1. aponi955@gmail.com : Apon Islam : Apon Islam
  2. mdarifpress@gmail.com : Nure Alam Siddky Arif : Nure Alam Siddky Arif
  3. hasanchy52@gmail.com : hasanchy :
  4. sandhanitv@gmail.com : Kamrul Hasan : Kamrul Hasan
  5. glorius01716@gmail.com : Md Mizanur Rahman : Md Mizanur Rahman
  6. mrshasanchy@gmail.com : Riha Chy : Riha Chy
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১৪ অপরাহ্ন

ইউজিসির নির্দেশ অমান্য করে জাবির সান্ধ্যকালীন কোর্সের বিজ্ঞপ্তি

  • প্রকাশ: বুধবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ২৩৬ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নির্দেশ অমান্য করে সান্ধ্যকালীন উইকেন্ড কোর্সের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ। এছাড়া সান্ধ্যকালীন উইকেন্ড কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগে। আর এসব উইকেন্ড, ইভিনিং কোর্সসহ নামে বেনামে সব ধরনের বাণিজ্যিক কোর্সে নতুন করে ভর্তি না নেয়ার দাবি জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট। এর আগে ১১ ডিসেম্বর সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধসহ ১৩ দফা নির্দেশনা দিয়ে চিঠি দেয় ইউজিসি।

ইউজিসির নির্দেশনার পরও এসব কোর্সে নতুন করে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ও ভর্তি পরীক্ষা নেয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট। বুধবার শাখা ছাত্রফ্রন্টের সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সভাপতি সুস্মিতা মরিয়ম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার এক যৌথসভায় এসব কোর্স বন্ধের দাবি জানান।

বিবৃতিতে নেতারা বলেন, ৯ ডিসেম্বর আচার্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে সান্ধ্যকালীন কোর্স ও বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধ করার বিষয়ে কথা বলেন। এরপর ১১ ডিসেম্বর ইউজিসি বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধ করার পরামর্শ দিয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের কাছে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে। কিন্তু এরপরও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধ করার ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ তো নেয়ইনি বরং অর্থনীতি বিভাগে নতুন করে উইকেন্ড কোর্সের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি এবং সিএসই বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নেতারা এর প্রতিবাদ জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন, ইউজিসির ২০০৬ সালের ২০ বছর মেয়াদি কৌশলপত্রের পরামর্শ মেনে বাণিজ্যিক কোর্স খোলার ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের যত তড়িঘড়ি ছিল, এখন সেই ইউজিসির পরামর্শেই বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কোনো ধরনের উদ্যোগ নেই।মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের শীর্ষ পদে বসলেন ছাত্রলীগের ২ সাবেক গত কয়েক মাস ধরে নানা অপকর্মের কারণে বারবার আলোচনায় আসছে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ নামে একটি সংগঠনের নাম। বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই সংগঠনের ব্যানারে কর্মসূচি, সাধারণ ছাত্রদের ওপর হামলার মতো একাধিক ঘটনা ঘটেছে।

সর্বশেষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক ও তার সঙ্গে থাকা কর্মীদের ওপর চড়াও হয়ে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ আবার সামনে এসেছে। মঞ্চের হামলায় ভিপি নুরুলসহ অন্তত ২৪ জন আহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে গুরুতর আহত হন অন্তত চারজন।

এ ঘটনার পর সমালোচনা ও বিতর্কের মুখে রয়েছে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’। এই পরিস্থিতির মধ্যে ‘সাংগঠনিক কার্যক্রম গতিশীল করার লক্ষ্যে’ সংগঠনটির একাংশের নেতৃত্বে রদবদল হয়েছে। বুধবার বিকেলে এস এম জাকারিয়া ইসলামকে মঞ্চের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ইফতেখার আলম রিশাদকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা দুজনই ছাত্রলীগের সাবেক নেতা।

গত রবিবার ডাকসু ভবনে ভিপি নুরুল হকের কক্ষে হামলা ও ভাঙচুর চালানোর ঘটনায় করা মামলার আসামি হয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের এই অংশটির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল পলাতক এবং সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক উপসম্পাদক আল মামুন পুলিশের হাতে আটক রয়েছেন। দুজনই নুরুলের করা মামলার আসামি এমন পরিস্থিতিতে জাকারিয়া ও ইফতেখারুল মঞ্চের নেতৃত্বে এলেন।

ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম জাকারিয়া ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উভয়েই এতদিন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ ছাড়া জাকারিয়া মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আর ইফতেখারুল মাদারীপুর জেলা শাখা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি। মঞ্চের এই অংশটির কেন্দ্রীয় সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ নিজেদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে কমিটিতে রদবদলের বিষয়টি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম জাকারিয়া ইসলামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানায়। তিনি মিরপুর বাংলা কলেজ থেকে অনার্স শেষ করেছেন। আর সাধারণ সম্পাদকের বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায়। তিনি চাকরিজীবীদের জন্য বিশেষভাবে নেয়া পরীক্ষার মাধ্যমে অনার্স শেষ করেছেন।

উল্লেখ্য, ২২ ডিসেম্বর ডাকসু ভবনে ভিপি নুরসহ তার অনুসারীদের উপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নিয়ে দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠে। হামলাকারীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলন করে বেশকিছু সংগঠন। সরকারের পক্ষ থেকেও দোষীদের বিচারের আশ্বাস দেয়া হয়।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
© All rights reserved © Sandhani TV
Theme Design by Hasan Chowdhury