স্টাফ রিপোর্টার : আশুলিয়ায় স্বামীকে আটকে রেখে পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিককে (২৪) গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাসাভাড়া দিতে না পারায় তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে দাবি করে ওই নারী আজ বুধবার মামলা করেন।

মামলায় চারজনকে আসামি করা হয়েছে। এরই মধ্যে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।


পুলিশ এবং ভুক্তভোগী নারীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আশুলিয়ার একটি এলাকায় একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে থাকেন ওই নারী ও তাঁর স্বামী। তিনি আশুলিয়ার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। তাঁর স্বামী পেশায় বাসচালক। গতকাল রাত ১২টার দিকে বাড়ির মালিক কালাম তাঁদের কাছে বাসাভাড়ার টাকা নিতে আসেন। এ সময় কালামের সঙ্গে তিনজন ছিল। কারখানা কর্তৃপক্ষ বেতন না দেওয়ায় পরে বাসাভাড়া দেবেন বলে ওই নারী বাসার মালিককে জানান। পরে কালামের সহযোগীরা ওই নারীর স্বামীকে পাশের কক্ষে নিয়ে আটকে রাখেন। এরপর কালাম ওই নারীকে ধর্ষণ করেন। পরে বাকি তিনজনও নারীকে ধর্ষণ করেন।

থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জিয়াউল ইসলাম, অভিযোগকারী নারীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হয়েছে। তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সেলিম রেজা বলেন, বাসাভাড়া দিতে না পারায় স্বামী আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি কালামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।