1. aponi955@gmail.com : Apon Islam : Apon Islam
  2. mdarifpress@gmail.com : Nure Alam Siddky Arif : Nure Alam Siddky Arif
  3. hasanchy52@gmail.com : hasanchy :
  4. sandhanitv@gmail.com : Kamrul Hasan : Kamrul Hasan
  5. glorius01716@gmail.com : Md Mizanur Rahman : Md Mizanur Rahman
  6. mrshasanchy@gmail.com : Riha Chy : Riha Chy
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০৩ অপরাহ্ন

এখন অসুস্থ হওয়ার সময় না…

  • প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২০
  • ৬৪ বার দেখা হয়েছে

অসুস্থ্য হবার টাইম এটা না…..। গত কয়েকদিন আগে বাবাকে হারিয়ে আর অসুস্থ্য মা’য়ের কারণে নিজের কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করলাম। কিন্তু আশা করি এই লার্নিংগুলো যেন কারো কাজে না আসে…….। আপনার পরিবার যেন সুস্থ থাকে।
১. তদবির না করলে আইইডিসিআর থেকে সহজে নমুনা সংগ্রহ করতে আসে না কেউ। তাই নমুনা সংগ্রহ করতে হতে পারে হাসপাতালে এ্যাডমিটের জন্য, এরকম সিচুয়েশনে দেরি না করে যত আগে সম্ভব যোগাযোগ করুন।
২. যে হাসপাতালেই নেন, নমুনার রেজাল্ট না আসা পর্যন্ত আপনার রোগীকে ডাক্তাররা কোভিড পেসেন্ট হিসেবে ট্রিট করবে। এটা মূল রোগের ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা বিলম্বিত করবে। পেশেন্টের রোগের ধরনই যদি এমন হয় যে দ্রুত প্রোপার মেডিকেশন লাগবে, সে ক্ষেত্রে ভাগ্য আপনার সহায় হউক।

৩.রোগীর যদি কোনক্রমে শ্বাসকষ্ট হয়ে যায়, প্রায় প্রতিটি প্রাইভেট হাসপাতালই এডমিশন নিতে গড়িমসি করবে এবং এই সময়ে তদবিরেও কাজ হবে না। বাবা হসপিটালে থাকার একই সময়ে আমার মায়েরও এ্যানেমিয়া ও মাইল্ড হার্ট অ্যাটাকের কারণে ব্রিদিং সমস্যা হওয়ায় ৩/৪ টি হাসপাতাল ঘুরেও এ্যাডমিশন হচ্ছিল না। পরিচিত ডাক্তারের মাধ্যমে শেষমেষ মোটামুটি মানের একটা হাসপাতালে জায়গা হয়, না হলে অ্যাম্বুলেন্সেই মাকে হয়তো হারাতে হতো বাবার সাথেই। কাজেই হাসপাতালের সঙ্গে তর্ক না জুড়ে বরং এফোর্ট দিন কোন হাসপাতালে ভর্তি করা যাবে, সেটা মোটামুটি হলেও।
৪. প্রাইভেট হাসপাতালে নিলে সেটি কোভিড-১৯ এর জন্য ডেডিকেটেড হোক না হোক, ডাক্তারদের পিপিই’র বিল আপনার ঘাড়ে আসবে মেডিক্যাল ডিসপোসেবলস হেডিংয়ের ভেতর। সো বিল শক একটু লাগতে পারে, রেডি থাকুন। এটি সব প্রাইভেট হাসপাতালের পলিসি নাকি সেটা জানি না অবশ্য।
৫. প্রয়োজনীয় ডাক্তার বা স্পেশালিস্টদের একসাথে পাওয়ার সম্ভাবনা কম। কেউ ছুটিতে, কেউ আসা বাদ দিয়েছে, কেউ ২/৩ দিন আসে। এই সময়ে একটু কম এক্সপার্টদের হাতে মাঝেই মাঝেই ছেড়ে দিতে হবে আপনার পেশেন্টকে।
৬. পরিশেষে.. এটা অসুস্থ্য হওয়ার সময় না, করোনা ভাইরাসে ধরলে এক সেন্সে কোন না কোন হাসপাতালে হয়তো এ্যাডমিশন পেয়েও যেতে পারেন, সুস্থ্যও হয়ে যাবেন মেবি ঘরে থেকেও। কিন্তু নন করোনা কোন রোগের টাইম এটি না…। স্পেশালি একটু জটিল ধরনের কিছু হলে। তাই সুস্থ্য থাকেন, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান…। যাতে হাসপাতাল থেকে, ডাক্তার থেকে দুরে থাকতে পারেন শত হস্ত।
(সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব সদ্য প্রয়াত ড. সা’দত হুসেইনের ছেলে সাহজেব সাদাতের টাইম লাইন থেকে)

শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
© All rights reserved © Sandhani TV
Theme Design by Hasan Chowdhury