1. aponi955@gmail.com : Apon Islam : Apon Islam
  2. mdarifpress@gmail.com : Nure Alam Siddky Arif : Nure Alam Siddky Arif
  3. hasanchy52@gmail.com : hasanchy :
  4. sandhanitv@gmail.com : Kamrul Hasan : Kamrul Hasan
  5. glorius01716@gmail.com : Md Mizanur Rahman : Md Mizanur Rahman
  6. mrshasanchy@gmail.com : Riha Chy : Riha Chy
বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন

  • প্রকাশ: সোমবার, ১৮ মে, ২০২০
  • ৪৫ বার দেখা হয়েছে

আসন্ন বাজেট অধিবেশন ১০ জুন থেকে শুরু করে ৩০ জুন চালানোর পরিকল্পনা করছে সংসদ সচিবালয়।এ সংক্রান্ত খসড়া প্রস্তাব তৈরির পর তা প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ নিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে।রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দিলেই ১০ জুন অধিবেশন শুরু হবে।আর ৩০ জুন শেষ হওয়ার ব্যাপারে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে। অধিবেশন শুরুর দিন সংসদ ভবনে এ কমিটির বৈঠক হবে। সংসদের একাধিক সূত্র  এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা যায়, করোনার কারণে সংসদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাজেট অধিবেশন চালানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে হিমশিম খাচ্ছে সংসদ সচিবালয়।সংসদের কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী সংসদে উপস্থাপিত সম্পূরক বাজেট এবং আগামী অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনার বিধান রয়েছে।তাদের মতামতের ভিত্তিতে প্রস্তাবিত বাজেটের উপর সংশোধনী আনতে হয়।কিন্তু এবার সংসদ সদস্যারা এ সুযোগ বেশি পাবেন না। করোনা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে।তাই সংসদ অধিবেশনের সময়সীমাতেও পরিবর্তন আসতে পারে। হতে পারে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা।

এ বিষয়ে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া  বলেন, ‘করোনার কারণে এবারের বাজেট অধিবেশন হবে স্বল্প পরিসরে।তাই মন্ত্রিসভার বৈঠকও হবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের নিয়ে। এছাড়া সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সভায় উপস্থিত হতে হবে। সংসদে প্রবেশের আগে সবার তাপমাত্রা মাপা হবে।থাকবে স্যানিটাইজারও।’

সংসদের আইন শাখা সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের বাজেট অধিবেশনের কার্যদিবস ছিল ২৫টি।ওই অধিবেশনে সম্পূরক বাজেটসহ মোট বাজেট আলোচনায় ২২৩ এমপি অংশ নেন।তারা মোট ৫৫ ঘণ্টা ৫৫ মিনিট আলোচনা করেন।বাজেট পাস ছাড়াও এ অধিবেশনে ১৪টি বিল পাস হয়।

আর ২০১৯ সালের বাজেট অধিবেশন ২১ কার্যদিবস চলে। মোট ২৬৯ সংসদ সদস্য বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে ৫৫ ঘণ্টা ৩৬ মিনিট আলোচনা করেন।এর আগে এতজন এমপি এত সময় ধরে বাজেটের উপর আলোচনার সুযোগ পাননি। কিন্তু এবার তা হচ্ছে না। এবার বিলও পাস হবে কম।

এ বিষয়ে চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী  বলেন, ‘করোনার কারণে যত দ্রুত সম্ভব শেষ করার চেষ্টা করব। কিন্তু বাজেট অধিবেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ অধিবেশন। তাই আমাদের অনেক চিন্তা ভাবনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

জানা যায়, আসছে বাজেট উপলক্ষে অনুষ্ঠেয় মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে ৪৭ মন্ত্রীর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ১১ জনকে ডাকা হচ্ছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিবসহ ১০ সচিব ও সিনিয়র সচিবরা উপস্থিত থাকবেন। সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছে সংসদ সচিবালয়।

জাতীয় সংসদের উপসচিব মনিরা বেগম স্বাক্ষরিত এক চিঠি থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী ছাড়া ২৫ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে সবাইকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বৈঠকে। এছাড়া বাজেট পেশ হবে সীমিত পরিসরে।

আগামী ১১ জুন (বৃহস্পতিবার) সংসদে বাজেট পেশ করা হবে। এ উপলক্ষে বাজেট পেশের আগে বরাবরের মতো সংসদ ভবনের মন্ত্রিসভা কক্ষে মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সম্ভাব্য দুপুর ১২টায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকের প্রস্তুতির জন্য সংসদের সংশ্লিষ্ট বিভাগে চিঠি দেয়া হয়েছে। চিঠি পাওয়ার পর সাধারণ ছুটির মধ্যেই কাজ করছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

জানা গেছে, আসন্ন (২০২০-২১) অর্থবছরের বাজেটের মূল আকার দাঁড়াতে পারে সাড়ে পাঁচ লাখ কোটি টাকা। ২০২০-২১ অর্থবছরে বাজেটে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) জন্য দুই লাখ পাঁচ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার খসড়া প্রস্তাব ইতিমধ্যেই অনুমোদন করেছে পরিকল্পনা কমিশন, যা চলতি (২০১৯-২০) অর্থবছরের এডিপির তুলনায় ছয় শতাংশ বেশি।

উন্নয়ন বরাদ্দের মধ্যে সরকারের নিজস্ব অর্থ থেকে এক লাখ ৩৪ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকা এবং বিদেশি সাহায্যের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৭০ হাজার ৫০২ কোটি টাকা। আসন্ন বাজেটে করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি পুনরায় দাঁড় করানোর কর্মপরিকল্পনার পাশাপাশি অধিকতর গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে চলমান মেগা প্রকল্পগুলোয়।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
© All rights reserved © Sandhani TV
Theme Design by Hasan Chowdhury