বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জাতীয় পর্যায়ে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যৌথভাবে প্রথম শাহাবউদ্দিন মাদবর কে পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় আশুলিয়াবাসী মানবিক যুবলীগের মানবিক কর্মী কবির হোসেন সরকার ভিপি নুরের নতুন রাজনৈতিক দল ঘোষণা বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগে অভিশপ্ত আগস্ট নাটকের মঞ্চায়ন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন নির্বাচন ২০২১ শাহাবুদ্দিন আহমেদ ইয়ারপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাভারের রাজনীতিতে ইতিবাচক কর্মকাণ্ডে প্রশংসিত মঞ্জু দেওয়ান সাভারে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সন্ত্রাস বিরোধী শান্তি মিছিল অনুষ্ঠিত আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৮ তম জন্মদিন পালন
ব্রেকিং নিউজ :
সাত বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় তিন ধরনের প্রতিবেদনে গরমিল পাওয়ায় অসন্তোষ জানিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন, সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও পুলিশ সুপারসহ (এসপি) সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আসামির জামিনের শুনানি নিয়ে রোববার (১৭ জানুয়ারি) বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও কে এম জাহিদ সারওয়ারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. শাহপরান চৌধুরী। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মনিরুল ইসলাম। সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মনিরুল ইসলাম আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

সাভারে এক সবজি ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ

গোলাম সারওয়ার সজলঃ

সাভারে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে এক সবজি ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে কিশোর গ্যাং এর সদস্যদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ব্যবসায়ী কে বেধড়ক পিটিয়ে তার বাম পা ভেঙে দিয়ে তার সাথে থাকা নগদ প্রায় ৩ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। সাভার পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ডের ভাট পাড়া মহল্লায় করিমের চায়ের দোকানের সামনে এই ঘটনা ঘটে। পরের দিন সকালে আবার ঐ সবজি ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধেই সাভার মডেল থানায় কিশোর গ্যাং লিডার রিনা আক্তার বাদী হয়ে মিথ্যা অভিযোগ করেন।

এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর স্ত্রী সালমা খাতুন।
গুরুতর আহত সবজি ব্যবসায়ীর নাম মোঃ শামসুল আলম (৩৫), তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া থানার পলাশী গ্রামে, সে বর্তমানে পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের রেডিও কলোনী ভাটপাড়া এলাকার আব্দুল হাইয়ের ভাড়া বাসায় থেকে কাঁচামালের ব্যবসা করছিলেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সবজি ব্যবসায়ী শামসুল আলমের সাথে দুই মাস আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ওই এলাকার স্বামী পরিত্যক্তা নারী রিনা আক্তারের পরিচয় হয়। এরপর গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সবজি ব্যবসায়ী শামসুল আলম ভাটপাড়া এলাকার করিমের চায়ের দোকানে বসে চা খাচ্ছিলেন। এসময় রাসেল নামে কিশোর গ্যাং এর এক সদস্য শামসুল আলম কে দোকান থেকে ডেকে পাশের গলিতে নিয়ে যায়। সেখানে রিনা আক্তার এর নির্দেশে রাসেলসহ কিশোর গ্যাং এর আরো কয়েকজন সদস্য মিলে শামসুল আলমকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বেধড়ক মারধর করেন । এক পর্যায়ে গ্যাং লিডার রাসেল বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে সবজি ব্যবসায়ী শামসুল আলমের বাম পা ভেঙে দেন। পরে তার কাছে থাকা নগদ প্রায় তিন হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গলায় পাড়া দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন। এ সময় শামসুল আলমের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে সাভারের সুপার ক্লিনিকে ভর্তি করেন।

আহত শামসুল আলম বলেন, কিশোর গ্যাং সদস্য রাসেল আমাকে দোকান থেকে ডেকে নিয়ে আমি কিছু বোঝার আগেই বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে পা ভেঙে দেয় এবং আমার কাছে থাকা নগদ টাকা লুট করে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ ঘটনায় তার স্ত্রী বাদী হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় কিশোর গ্যাং লিডার রাসেল ও তাদের নির্দেশদাতা রিনা আক্তার এর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামাদের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়,সবজি ব্যবসায়ী সামছুল আলম কে পা ভেঙ্গে হত্যা চেষ্টা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় উক্ত এলাকার জনগন কিশোর গ্যাং সদস্য রাসেল কে আটক করে তার মাথার চুল কেটে পুলিশে দিতে চাইলে কিশোর গ্যাং লিডার রিনা আক্তার ভাটপাড়া এলাকার ব্যবসায়ী হাকিম এর অফিসে বিষয়টি মিমাংসা করার প্রস্তাব দিয়ে আহত সামছুলের চিকিৎসা খরচ বাবদ প্রাথমিক অবস্থায় ২৫০০ টাকা দেন,পরক্ষনেই সাভার মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে ব্যবসায়ী হাকিম ও আহত সামছুল কে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ব্যবসায়ী হাকিম বলেন আমি সম্মানের সহিত এলাকায় ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি,আমার সম্মানহানী ও ব্যবসায় ক্ষতিসাধনের জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে,আমি এই মহিলা কে চিনি না এমন কি আগে কোনোদিন দেখি নাই।

অন্যদিকে মিথ্যা অভিযোগকারী রিনা আক্তার সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে স্বীকার করেন হাকিম তার পূর্ব পরিচিত নয়,হাকিমের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন হাকিমের অফিসে আমার ছেলের চুল কেটে পুলিশে দিতে চেয়েছেন এই জন্যে আমি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে লিখিত অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলমগীর হোসেন বলেন অভিযোগের বিষয়টি অবগত হয়েছি, উর্ধতন কর্মকর্তা নির্দেশে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page

প্রযুক্তি সহায়তায় Freelancer Zone