বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জাতীয় পর্যায়ে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যৌথভাবে প্রথম শাহাবউদ্দিন মাদবর কে পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় আশুলিয়াবাসী মানবিক যুবলীগের মানবিক কর্মী কবির হোসেন সরকার ভিপি নুরের নতুন রাজনৈতিক দল ঘোষণা বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগে অভিশপ্ত আগস্ট নাটকের মঞ্চায়ন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন নির্বাচন ২০২১ শাহাবুদ্দিন আহমেদ ইয়ারপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাভারের রাজনীতিতে ইতিবাচক কর্মকাণ্ডে প্রশংসিত মঞ্জু দেওয়ান সাভারে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সন্ত্রাস বিরোধী শান্তি মিছিল অনুষ্ঠিত আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৮ তম জন্মদিন পালন
ব্রেকিং নিউজ :
সাত বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় তিন ধরনের প্রতিবেদনে গরমিল পাওয়ায় অসন্তোষ জানিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন, সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও পুলিশ সুপারসহ (এসপি) সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আসামির জামিনের শুনানি নিয়ে রোববার (১৭ জানুয়ারি) বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও কে এম জাহিদ সারওয়ারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. শাহপরান চৌধুরী। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মনিরুল ইসলাম। সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মনিরুল ইসলাম আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

সাভারের আশুলিয়ায় গৃহকর্মীকে মারধর এবং স্পর্শকাতর স্থানে আয়রনের ছ্যাঁকা দেওয়ার ঘটনায় একজন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় গৃহকর্মীকে মারধর করে মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। এঘটনায় দেলোয়ারের স্ত্রী লিপিকে আটকের জন্য অভিযান চলছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাত ১০ টার দিকে আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকার সোনিয়া মার্কেট এলাকায় গৃহকর্মীকে ব্যাপক মারধর ও স্পর্শকাতর স্থানে আয়রনের ছ্যাঁকা দেয় ভুক্তভোগী ওই গৃহকর্মীকে।

অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন আশুলিয়ার গাজিচটের বগাবাড়ি এলাকার বাসিন্দা ও ওই এলাকার সোনিয়া মার্কেটের মালিক।

ভুক্তভোগী ওই নারী বলেন, আমার স্বামী সোনিয়া মার্কেটসহ এর আশেপাশে রিকশা চালান। সংসারের অভাব মেটাতে তিনি দিন মজুরের কাজ করেন। মাঝে মধ্যে দিন মজুরের কাজ না পেলে মানুষের বাড়িতে কাজ করেন। ঘটনার দিন দেলোয়ার ও তার স্ত্রী লিপি বেগম আমাকে কাজের জন্য বাড়িতে ডেকে নিয়ে যান। আমি তার বাসায় কাজ করছিলাম। এসময় দেলোয়ারের স্ত্রী বাহিরে চলে গেলে দেলোয়ার আমাকে জোর পুর্বক ধর্ষণ করেন। এর মাঝে লিপি ঘরের ভিতরে চলে আসেন। লিপি কোন কথা না শুনে আমায় চড়-থাপ্পড় মারতে থাকেন।

তিনি আরও জানান, লিপিসহ দুই জন ওড়না দিয়ে বেঁধে বিকেল তিনটা পর্যন্ত আটকে রেখে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন। এতেও তারা শান্ত হননি। পরে স্পর্শকাতর স্থানে আয়রনের ছ্যাঁকা দিয়ে নখ তুলে ফেলার চেষ্টাও করেন এবং চুল কেটে ন্যাড়া করে দেন। এঘটনায় বাড়ির অপর ব্যক্তি তাকে উদ্ধার করে রিকশা ভাড়া করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। পরে বুধবার ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দেলোয়ার বলেন, ওই নারীকে তো চিকিৎসার জন্য ৮ হাজার টাকা দিয়েছি। আরও লাগলে আরও দেবো। ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, আমার স্ত্রীর একটু রাগ বেশি তাছাড়া আমাকে সন্দেহ করে ওই মহিলারে অযথাই মারধর করছে।

এব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক এসআই ইউনুস জানান, ওই নারী শ্লীলতাহানির অভিযোগে মুলহোতা দেলোয়ার হোসেনকে আটক করা হয়ছে। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে দেলোয়ারকে সাথে নিয়ে লিপিকে আটকের জন্য অভিযান চালানো হয়। তবে লিপি পলাতক রয়েছে, তাকে আটকের চেষ্টা ছলছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page

প্রযুক্তি সহায়তায় Freelancer Zone